• মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ পূর্বাহ্ন
  • BengaliEnglish
শিরোনাম
জগদল উচ্চ বিদ্যালয়ের এস.এস.সি ২০০০ ব্যাচের মিলন মেলা খাদিমনগরে ভুয়া আইডি খুলে পিতা পুত্রের নামে অপপ্রচার, থানায় জিডি স্ত্রী-সন্তানসহ বিশ্বনাথের ইউএনও করোনা আক্রান্ত জে জে অনলাইন টিভির লন্ডন প্রতিনিধি নিয়োগ পেলেন আনকার মিয়া মেয়র নাদের বখতের সাথে মত বিনিময় করে রিপোর্টার্স ইউনিটি আব্দুজ জহির চৌধুরীর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকীতে জেলা আ’লীগের মিলাদ ও দোয়া বৃহস্পতিবার আ’লীগ সরকার যে কথা দেয় তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করে – এড. নাসির উদ্দিন খান গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে আরও ৬০২ জন করোনায় আক্রান্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে।আরও ৬০২ জন করোনায় আক্রান্ত ছাতকে হামলা ও মারধর করে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় মামলা

ইতালিতে বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি

মোঃ আবু জাবের / ৮১ বার পড়া হয়েছে
আপডেট: রবিবার, ১৬ আগস্ট, ২০২০

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

হাজার বছরের শ্ৰেষ্ঠ বাঙালী স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি এবং দোয়ার আয়োজন করেছে ইতালীর বলোনীয়া বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বলোনীয়া আওয়ামী লীগের প্রধান আহ্বায়ক জাবির হোসেন মুসা, আমিনুল ইসলাম নান্নু, আনোয়ার হোসেন, আলী আকবর শিকদার, আমির হোসেন, আসাদুজ্জামান, রফিকুল ইসলাম সরদার, সালাম হোসেন, আরাফাত হোসেন কাজী, এনামুল হকটিটু খালাসী, ইসাহাক, খোকন বেপারী, সুমন, আহসান ফকির, ফরিদ, কালাম হাওলাদার, অপু কস্তা, আবুল হোসেন তপাদার, আজম খালাসী, আক্তার হোসেনসহ আরও অনেকে।

১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের সদস্যসহ যাঁরা শাহাদত বরণ করেছেন তাঁদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ এবং বঙ্গবন্ধু একইসূত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ জন্ম হতো না। সদ্য স্বাধীন হওয়া দেশকে নিজের স্বপ্নের মতো করে গড়ে তুলতে বঙ্গবন্ধু সকল ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। কিন্তু ইতিহাসের এ মহামানব, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, তাঁর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে সময় পেয়েছিলেন মাত্র সাড়ে তিন বছর। ১৫ আগস্টের কালরাত্রিতে ঘাতক চক্রের বুলেটের নিষ্ঠুর আঘাতে জাতি হারায় তার পিতাকে ও অভিভাবককে আর থমকে যায় সোনার বাংলাদেশ গড়ার সকল পদক্ষেপ। এখন বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করে একটি সুখী-সমৃদ্ধ দেশ নির্মাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

বক্তারা অরও বলেন, বিভিন্ন সামাজিক সূচকে উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন হয়েছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, নারী শিক্ষা ও নারী ক্ষমতায়ণে এবং খেলাধুলাসহ সকল ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর এই আরাধ্য কাজে সকল দেশপ্রেমিক জনগণকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতা করার জন্য আহ্বান জানান বক্তারা।

১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুসহ শাহাদত বরণকারী সব শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।


এই বিভাগের আরো খবর